প্রসব পরবর্তী কালীন সাধারণ রক্তক্ষরণ এবং স্রাব নিঃসরণ (Lochia)

Updated on

প্রসবের পর রক্তক্ষরণ বা রক্তস্রাব হওয়া কি স্বাভাবিক?

প্রায় প্রত্যেক নারীরই সন্তান প্রসবের সময় এবং পরবর্তীতে রক্তক্ষরণ বা রক্তস্রাব হয় এবং প্রসবের কয়েকদিন পর এই রক্তস্রাবের পরিমাণ বেশ বেড়ে যেতে দেখা যায়। কেননা গর্ভকালীন সময়ে শরীরের রক্ত প্রায় শতকরা পঞ্চাশ শতাংশ বৃদ্ধি পায় তাই প্রসব পরবর্তী সময়ে শরীর এই অতিরিক্ত রক্তস্রাবের জন্য মোটামুটি তৈরি হয়েই থাকে।

নিম্নক্ত কারণে এমনটা হয়ে থাকেঃ

গর্ভ-ফুল বা প্লাসেন্টা যখন জরায়ু থেকে আলাদা হয়ে যায় তখন সেই সংযুক্ত জায়গাটিতে অনেক উন্মুক্ত রক্তনালী রয়ে যায় এবং সেগুলো থেকে রক্তপাত হতে থাকে যা জরায়ুতে জমা হয়। প্রসবের পর যখন প্লাসেন্টা বেড়িয়ে যায় তখন জরায়ুর সংকোচনের ফলে রক্ত নালীগুলো ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যায়। এতে রক্তপাত অনেকটা কমে আসে।  

তবে যদি প্রসবের সময় এপিসিওটমির প্রয়োজন হয় অথবা সন্তান প্রসবের সময় যৌনাঙ্গ ছিঁড়ে যায় তাহলে তা ঠিক না করা পর্যন্ত সে স্থান থেকেও রক্তক্ষরণ হতে থাকবে।

আপনার ডাক্তার হয়ত আপনার জরায়ু যাতে ঠিকমত সঙ্কুচিত হয় তাই কিছুটা মাসাজ করে দিবেন এবং synthetic oxytocin (Pitocin) ওষুধ সেবন করতে পরামর্শ দিবেন। এছাড়া শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ালেও শরীর থেকে প্রাকৃতিক oxytocin নিঃসৃত হয়, যেটা জরায়ু সঙ্কুচিত হতে সাহায্য করে। (এজন্যই হয়ত এই সময়ে আপনার কিছুটা অস্বস্তি এবং ব্যথা অনুভূত হতে পারে)

সাধারণত প্রসবের পর জরায়ু ঠিকমত সঙ্কুচিত নাও হতে পারে, যার ফলে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে (এই ধরনের অবস্থাকে postpartum hemorrhage বলা হয়ে থাকে)

প্রসব পরবর্তী স্রাব বা Lochia কি এবং কেন হয়? প্রসবের পড় কতদিন স্রাব বা রক্ত যায়? ?

প্রসব পরবর্তী সময়ে যৌনাঙ্গ দিয়ে যে স্রাব হয় তাকেই lochia বলা হয়ে থাকে। এই শব্দটা আদতে গ্রিক ভাষা থেকে আগত, এর অর্থ হল “সন্তানের জন্ম সম্বন্ধীয়”। এই রক্তস্রাবের মধ্যে রক্ত, কোষ, জরায়ুর আস্তরণের কোষ এবং ব্যাকটেরিয়া থাকে। 

সন্তান জন্ম হওয়ার পরবর্তী কয়েকদিন এই রক্তস্রাবের মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণ রক্ত বের হয়ে থাকে, তাই এই রক্তের বর্ণ অনেকটাই উজ্জ্বল লাল রঙের হয়। এই সময়ে আপনার মনে হতে পারে যে আপনার হয়ত অতিরিক্ত পিরিয়ড অর্থাৎ মাসিক হচ্ছে।

এটা কিছুক্ষণ পর পর গুচ্ছ আকারে বা নিয়মিত ধারায় বের হতে পারে।  আপনি যদি বেশ কিছুক্ষণ শুয়ে থাকেন এবং আপনার যৌনাঙ্গে রক্ত জমা হয়ে থাকে তাহলে আপনি যখন উঠবেন তখন হয়ত সামান্য জমাট বাঁধা রক্তপিণ্ড ও দেখতে পারেন সেখানে।

প্রতিদিন আগের থেকে রক্তস্রাব ধীরে ধীরে কমে আসবে আর রক্তের রঙও তার উজ্জ্বলতা হারাতে থাকবে। প্রসবের দুই থেকে চারদিনের মধ্যে এই রক্তস্রাব অনেকটাই পানির মত হালকা ও গোলাপি বর্ণ ধারণ করবে।

প্রসবের দশ দিন পর আপনি হয়ত খুব সামান্য পরিমাণ হলদে-সাদা বর্ণের রক্তস্রাব হতে দেখবেন। এই সময়ে আপনার এই রক্তস্রাবের মাধ্যমে সাধারণত শুধু সাদা রক্ত কণিকা এবং জরায়ুর আস্তরণের কোষ বের হয়ে আসতে থাকে।

দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যেই এই রক্তস্রাব বন্ধ হয়ে যাবে, যদিও কিছু নারীদের ক্ষেত্রে দেখা যায় যে এই রক্তস্রাব আরো কয়েক সপ্তাহ ধরেও হচ্ছে।

এছাড়া আপনি যদি মিনি পিল (progestin-only birth control pill)  সেবন করে থাকেন অথবা জন্ম নিয়ন্ত্রক ইনজেকশন ব্যাবহার করেন তাহলে আপনার এই রক্তস্রাব প্রায় মাস খানেক ধরে অথবা তারও বেশি সময় ধরে চলতে থাকবে। এক্ষেত্রে চিন্তার কোন কারণ নেই, কেননা এটা খুবই স্বাভাবিক একটা ব্যাপার।

 Lochia অর্থাৎ এই রক্তস্রাব হলে আপনার করনীয় কি?

একদম প্রাথমিক দিকে খুব উচ্চ শোষণ ক্ষমতা সম্পন্ন স্যানিটারি ন্যাপকিন ব্যাবহার করতে হবে। হাসপাতাল থেকেই বেশ কিছু ন্যাপকিন দিয়ে আপনাকে বাসায় পাঠানো হবে তবে পরবর্তীতে প্রয়োজন অনুসারে আপনি আরো কিনে নিতে পারেন। এই রক্তস্রাব বন্ধ হয়ে গেলে আপনি আগের মত সাধারণ ন্যাপকিন ব্যবহার শুরু করতে পারেন।

অন্তত ছয় সপ্তাহের মধ্যে কখনই ট্যাম্পুন ব্যাবহার করবেন না, কেননা এই সময় ট্যাম্পুন ব্যবহার করলে আপনার স্বাভাবিক হয়ে আসতে থাকা যৌনাঙ্গ এবং জরায়ুতে ইনফেকশন হয়ে যেতে পারে।

বেশি বেশি করে প্রস্রাব করুন, এমনকি আপনার খুব বেশি প্রস্রাবের বেগ না আসলেও। কেননা সন্তান প্রসবের পরবর্তী বেশ কিছুদিন ধরে আপনার মুত্রথলি তেমন একটা সংবেদনশীল নাও হতে পারে। একারণে আপনার মুত্রথলি একদম পূর্ণ হয়ে আসলেও হয়ত আপনি তেমন কিছু অনুভবই করবেন না।

মুত্রথলি পূর্ণ রেখে দিলে আপনার প্রস্রাব জনিত বেশ কিছু সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে এর পাশাপাশি এমন অবস্থায় জরায়ু সংকোচিত হতেও সময় নেয়। ফলাফল স্বরূপ আপনার ব্যথা অনুভব হতে পারে এবং অতিরিক্ত রক্তস্রাব হতে পারে।

যতটা সম্ভব এই সময়ে বিশ্রাম নিতে হবে আপনাকে। কেননা আপনি যদি খুব বেশি কোন কাজ করে ফেলেন তাহলে আপনার রক্তস্রাবও দীর্ঘায়ত হতে পারে এবং আপনার Lociha অর্থাৎ রক্তস্রাব বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরে পুনরায় আবার শুরু হয়ে যেতে পারে।

কীভাবে বুঝবেন যে আপনার অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হচ্ছে?

যদি আপনার রক্তস্রাব কিছুটা হালকা হয়ে আসার পরে আবার পুনরায় এটা শুরু হয়ে যায় তাহলে হয়ত আপনাকে এটা বুঝতে হবে যে আপনার অনেক বিশ্রামের প্রয়োজন। তবে আপনি কিছুদিন পরিপূর্ণ বিশ্রাম নেয়ার পরেও যদি রক্তস্রাব হতে থাকে তাহলে অতি দ্রুত ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন।

আপনার রক্তস্রাব যদি অতিরিক্ত হয়ে যায় তাহলে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করুন। এছাড়া নিম্নোক্ত কারণেও ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করতে ভুলবেন নাঃ

  • সন্তান জন্ম গ্রহণের চারদিন পরেও যদি আপনার রক্তস্রাব বেশ উজ্জ্বল লাল বর্ণের হয়ে থাকে।
  • আপনার এই রক্তস্রাব থেকে যদি দুর্গন্ধ আসে এবং আপনার জ্বর জ্বর লাগে অথবা গায়ে কাঁপুনি লাগে। এগুলো প্রসব পরবর্তী ইনফেকশনেরও লক্ষণ হতে পারে।
  • আপনার যদি অস্বাভাবিক ভাবে ভারি রক্তস্রাব হতে থাকে (আপনার ন্যাপকিন যদি এক ঘণ্টার মধ্যেই পূর্ণ হয়ে যায় অথবা রক্ত জমাট বেঁধে গলফ বল থেকেও বড় আকৃতি ধারণ করে)। এগুলো late postpartum hemorrhage এর লক্ষণ হিসেবেও পরিলক্ষিত হয় এবং এসব ক্ষেত্রে পূর্ণ পর্যবেক্ষণ প্রয়োজনীয়।

আরেকটা ব্যাপার মনে রাখবেন, অতিরিক্ত রক্তস্রাবের কারনে যদি আপনার জ্ঞান হারানোর মত অবস্থা সৃষ্টি হয় সেক্ষেত্রেও অতি দ্রুত ইমার্জেন্সি নাম্বারে কল করুন এবং জরুরী সাস্থসেবা গ্রহণ করুন।

সবার জন্য শুভকামনা।

Related posts

Leave a Comment