শিশুকে খাওয়ানোর বিষয়ে যে ১১ টি ভুল বাবা মায়েরা করে থাকেন

শিশুকে খাওয়ানোর বিষয়ে যে ১১ টি ভুল বাবা মায়েরা করে থাকেন

সন্তান ঠিকমত খাওয়া দাওয়া না করতে চাইলে সব বাবা-মায়েরাই বেশ দুশ্চিন্তায় ভোগেন। তবে আমরা নিজেরাই শিশুর খাওয়ার প্রতি অনীহার কারণ হয়ে উঠছি কি না সেটা নিয়েও কিছুটা ভাবা প্রয়োজন। কেননা একটু সঠিক পদ্ধতিতে খাওয়ালেই হয়ত শিশু ঠিকমত খাওয়া দাওয়া করবে। শিশুর খেতে না চাওয়াকে একটি বদ অভ্যাসের কাতারে ফেলে দিয়ে, নিজেদের দোষগুলোর দিকে হয়ত অনেক বাবা মায়েরাই তেমন লক্ষ্য রাখেন না। আমরা আজ কথা বলব এমনই কিছু ভুল নিয়ে, যে ভুলগুলো শিশুকে খাওয়ানোর সময় আমরা হরহামেশাই করে থাকি। ১। স্বাধীনভাবে খেতে না দেয়া / খাবার খেতে জোর করা এমনটা প্রায়…

বিস্তারিত পড়ুন

শিশুকে নিজের হাতে খাওয়া শেখানো | বেবি লেড উইনিং (baby-led weaning)

শিশুকে নিজের হাতে খাওয়া শেখানো | বেবি লেড উইনিং

আপনার শিশুর শক্ত খাবার খাওয়ার প্রথম ধাপে তার কাছে নতুন নতুন স্বাদ ও টেক্সচারের দ্বার উন্মুক্ত হয়। কিন্তু আপনি কিভাবে নির্ধারণ করবেন যে তাকে আপনি তার সলিড খাবারের সাথে কিভাবে পরিচিত করবেন? আপনি কি তাকে একটি ছোট চামচ দিয়ে দিবেন নাকি আপনার আঙ্গুলের সাহায্যে খাওয়াবেন, নাকি সে নিজেই তার ছোট হাতে নিয়ে একা একাই মুখে দিবে?  স্বস্তির বিষয় হল, আমরা বোতলের দুধে সুজি বা চালের গুড়ো মিলিয়ে খাওয়ানো থেকে সরে আসছি, কিন্তু  শিশুদের সলিড শুরু করার জন্য ব্যবহৃত ঐতিহ্যবাহী উপায়সমূহ এবং শিশুকে নিজের হাতে খেতে দেয়ার ব্যাপারে এখনো শিশুদের মা-বাবা…

বিস্তারিত পড়ুন

ওটস্‌ (Oats) নিয়ে যত কথা

ওটস্‌ (OATS) নিয়ে যত কথা

ইদানিং অনেক প্যারেন্টসই বাচ্চার প্রথম খাবার হিসেবে ওটস্‌ কেমন হবে সেটি নিয়ে অনেক প্রশ্ন করছেন, যেমন ওটস্‌ (oats) বাচ্চাদের খাওয়ানো যাবে কিনা? এর পুষ্টিগুণ কি? কোনটা খাওয়াবো ? কিভাবে রান্না করা হয় ? বাচ্চাদের ওটস্‌ আলাদা কিনা ইত্যাদি। এর মাঝে সবচেয়ে কমন এবং প্রাসঙ্গিক প্রশ্ন হলো ‘অনেকে ওজন কমানোর জন্য ওটস্‌ খান, এটি কি করে বাচ্চাদের খাবার হয় ?’ আশা করি আমাদের লেখাটি ওটস্‌ (oats)  নিয়ে আপনাদের এসব সংশয় অনেকাংশে দূর করবে। ওটস্‌ (Oats)  কি? যেহেতু আমাদের দেশে উৎপাদিত হয় না, তাই এর কোনো বাংলা নাম জানা নেই, ওটস্‌ (oats)…

বিস্তারিত পড়ুন

শিশুর প্রথম খাবার হিসেবে ওটস (Oats): কিছু রেসিপি

শিশুর প্রথম খাবার হিসেবে ওটস

আপনার শিশুর প্রথম সলিড হিসেবে ওটস অনন্য-অসাধারন একটি খাবার, শিশুর পাঁচ মাস কিংবা ছয় মাসের শুরুর দিকেই আপনি ওটস ট্রাই করে দেখতে পারেন। বাজারে বাচ্চাদের খাবার হিসেবে যেসব টিন-জাত প্রসেসড ওট-মিল পাওয়া যায় সেগুলো এবং সহজে রান্না করা যায় এমন ওটস কিংবা ওটমিল (oatmeal) পরিহার করাই উত্তম, কারণ এগুলোয় পুষ্টিগুন তেমন কিছুই অবশিষ্ট থাকে না। সবচেয়ে ভালো হয় রোলড ওটস কিংবা স্টিল-কাট ওটস পাওয়া গেলে। আজকাল আমাদের দেশে অনেক সুপার-শপ রোলড ওটস আমদানি করছে। রোলড ওটস কিছুটা গোটা গোটা থাকার পুরোপুরি রান্না হতে ১৫ থেকে ২০ মিনিট সময় নেয়। আপনি…

বিস্তারিত পড়ুন

যেভাবে খাবারের প্রতি খুঁতখুঁতে বাচ্চাকে (Picky Eater) সামলাবেন

যেভাবে খাবারের প্রতি খুঁতখুঁতে বাচ্চাকে (Picky Eater) সামলাবেন

শক্ত/ ভারি খাবার খাওয়া আপনার বাচ্চার জন্য নতুন এক অভিজ্ঞতা। বিভিন্ন স্বাদ, রং ও আকৃতির খাবার খাওয়ার অভ্যাস করার জন্য তার একটু সময় প্রয়োজন। যদিও বাচ্চারা অনেক কিছু ধারাবাহিকভাবে করতে পারে ( খেলা থেকে ঘুমানো পর্যন্ত ) কিন্তু খাবারের সময় তারা খুব অনীহা প্রকাশ করে ; এমনকি পরিচিত খাবার খাওয়ার সময়েও !

বিস্তারিত পড়ুন

লবণ, চিনি, মধু শিশুর এক বছরের আগে কেন দিতে নিষেধ করা হয়?

লবণ, চিনি, মধু শিশুর এক বছরের আগে কেন দিতে নিষেধ করা হয়?

আমরা আজকাল হরহামেশাই একটি উপদেশ শুনি- “বাচ্চার খাবারে চিনি, লবণ কিংবা মধু দিবেন না”। এই কথাগুলোর যৌক্তিকতা কতটুকু? আমরা অনেকেই কথাগুলো পাত্তা দেইনা- কিছু মা এর মন্তব্য “ আমি আমার বাচ্চাকে এগুলো সবই দিয়েছি এক বছর বয়সের আগেই- কই কিছু তো হয়নি” , “আরে কিছু হবেনা, এগুলো বাড়াবাড়ি, ডাক্তাররা কত কথাই বলে” কিংবা “গুগল কত কিছুই বলবে”।  এই মন্তব্যকারীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই,শরীরের সব ক্ষতি সবসময় দৃষ্টিগোচর হয়না। কিছু ক্ষতির ফল সুদূরপ্রসারী, তাৎক্ষনিকভাবে তা বোঝা যায়না, আবার কিছু তাৎক্ষনিক রিঅ্যাকশন কারো হয়,  কারো হয়না। যেমন- একজন ধূমপায়ী বলতেই পারেন “আমি গত…

বিস্তারিত পড়ুন

বাচ্চাকে জোর করে খাওয়ানোর কুফল

বাচ্চাকে জোর করে খাওয়ানোর কুফল

সব শিশুদের মধ্যে একটা সাধারণ সমস্যা দেখা যায়। সেটা হলো খাবার নিয়ে বায়নাক্কা করা! কোনো কোনো শিশু নিজের পছন্দের খাবার ছাড়া আর কিছুই খেতে চায় না। আবার কোনো শিশু সব কিছুতেই নাক সিঁটকায়। কেউ আছে খায় বটে, তবে পুরো খাবার না খেয়েই উঠে পড়ে। মোটকথা, বেশির ভাগ বাচ্চারাই খাবার নিয়ে ঝামেলা করে! বাচ্চা কেন খেতে চায়না? বেশির ভাগ মায়েরই অভিযোগ—বাচ্চা খেতে চায় না। কিছু কিছু রোগের কারণে শিশুদের রুচি কমে যেতে পারে, কিন্তু বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ব্যাপারটা অত জটিল কিছু নয়। অনেক ক্ষেত্রেই এ বিষয়ে মা-বাবার উৎকণ্ঠা থাকে। হয়তো শিশু…

বিস্তারিত পড়ুন

কিভাবে বুঝবেন আপনার বাচ্চা সলিড বা বাড়তি খাবার খাওয়ার জন্য প্রস্তুত?

কিভাবে বুঝবেন আপনার বাচ্চা সলিড খাবার খাওয়ার জন্য প্রস্তুত?

কিভাবে বুঝবেন বাচ্চা সলিড খাবার খাওয়ার জন্য প্রস্তুত? আপনার বাচ্চার জন্য সলিড খাবার খাওয়া শুরু করা একটা বড় পদক্ষেপ। যখন বাচ্চার বয়স ৬ মাস হয়ে যায় তখন বাচ্চার কিছু আচরণ দেখে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার শিশু সলিড খাবার খাওয়ার জন্য তৈরী কিনা৷ যে শিশু সলিড খাবার খাওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকে সে সাধারণত এই কাজগুলি করতে পারে: সে মাথা উপরদিকে তুলতে পারে৷ সলিড খাবার খাওয়ার জন্য বাচ্চার দৃঢ়ভাবে মাথা সোজা করে রাখতে পারাটা জরুরী। হেলান দেওয়ার সুবিধা পেলে, সে ভালো করে বসতে পারে৷ প্রথমে হয়ত আপনার শিশুকে কোলে নিয়ে বসাতে…

বিস্তারিত পড়ুন

কোন বয়স থেকে বাচ্চাকে গরুর দুধ খাওয়ানো শুরু করা উচিত?

কোন বয়স থেকে বাচ্চাকে গরুর দুধ খাওয়ানো শুরু করা উচিত?

আজকালকার বাবা-মায়েরা তাদের বাচ্চাদের নিয়ে মাত্রাতিরিক্ত সচেতন হলেও অনেক বিষয় নিয়েই তারা ভাল-মন্দের মধ্যে ফারাক করতে পারেন না। যেমন ধরুন একদল তাদের বাচ্চাদের জন্ম নেওয়ার কয়েক মাস পর থেকেই গরুর দুধ খাওয়াতে শুরু করে দেন। কিন্তু এত কম বয়সে বাচ্চাকে গরুর দুধ খাওয়ানো ঠিক কি? এই উত্তর খোঁজার চেষ্টা করা হল এই প্রবন্ধে। বাচ্চার বয়স অন্তত ১২ মাস হওয়া পর্যন্ত গরুর দুধ দেয়া থেকে বিরত থাকা উচিত কেন? গরুর দুধ এক বছরের কম বয়সী শিশুদের মোটেও দেয়া উচিত নয়। এটা এমন একটি খাদ্য যাতে রয়েছে উচ্চমানের প্রোটিন এবং ক্যালসিয়াম ও…

বিস্তারিত পড়ুন

বাচ্চাকে কখন থেকে খাবার পানি দেয়া উচিত?

বাচ্চাকে কখন থেকে খাবার পানি দেয়া উচিত?

বাচ্চাকে কখন থেকে খাবার পানি দেয়া উচিত? সাধারণভাবে বলতে গেলে বাচ্চাকে তার ৬ মাস বয়স পর্যন্ত পানি দেয়া উচিত নয়। কারণ এ সময় পর্যন্ত বাচ্চা বুকের দুধ বা ফর্মুলা থেকে তার তরলের চাহিদা পুরোপুরি পূরণ করে নেয় এমনকি গরম আবাহাওয়াতেও। আসলে মায়ের বুকের দুধ কিংবা ফরমুলাতে পানিয় অংশ থাকে বেশী, যা বাচ্চাকে হাইড্রেটেড রাখে, অতিরিক্ত পানির প্রয়োজন পড়ে না। বাচ্চার প্রথম ছয় মাস (বা ছয়মাসের কাছাকাছি) মায়ের বুকের দুধ খাওয়াতে হবে। এরকম শুধুমাত্র বুকের দুধ খাওয়ানো হলে (Exclusive Breastfeeding) কোন অতিরিক্ত পানির প্রয়োজন নেই। ভীষন গরমের সময়ও এটা প্রযোজ্য। যেসব…

বিস্তারিত পড়ুন