সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ১

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ - ১

গর্ভধারণের সময় গণনা সাধারণত শুরু হয় মাসিক এর প্রথম দিন হতেই। এই সময় এর সপ্তাহ দুই এক এর মধ্যেই সাধারণত গর্ভসঞ্চার হয়ে থাকে। যেহেতু গর্ভসঞ্চার এর নির্দিষ্ট সময় নির্ণয় করা অসম্ভব তাই বিশেষজ্ঞরা শেষ মাসিক এর প্রথম দিন হতে পরবর্তী ৪০ সপ্তাহকে গর্ভধারণ এর সময় হিসেবে বিবেচনা করে থাকেন। এই হিসেবেই প্রসবের দিন (Due Date) গণনা করা হয়। আপনার Due Date জানতে আমাদের Due Date Calculator ব্যাবহার করতে পারেন। [youtube https://www.youtube.com/watch?v=hqp3B_bDIjQ&feature=youtu.be ] প্রথম সপ্তাহের এ সময়টিতে আপনি ঠিক গর্ভবতী নন, কারন গর্ভসঞ্চারের ব্যাপারটি আপনার মাসিক শেষের দুই সপ্তাহ পর ঘটে…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ২

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ - ২

গর্ভাবস্থার দ্বিতীয় সপ্তাহের উল্লেখযোগ্য বিষয়: এই সময়ে ডিম্বস্ফুটন (Ovulation) হতে পারে। তাই যৌনমিলনের উপযুক্ত সময়। ওভুলেশন টেস্টের মাধ্যমে ফারটাইল উইন্ডো (Fertile Window) তথা যৌনমিলনের উপযুক্ত সময় বের করা সম্ভব। গর্ভবতী হওয়ার পূর্বে প্রচুর পরিমাণ ফলিক এসিড খাওয়া জরুরি। এই সপ্তাহে গর্ভের শিশুর বৃদ্ধি শরীরের প্রস্তুতি বিগত কিছু দিনে, শরীরে এস্ট্রোজেন এবং প্রোজেস্টেরোনের বৃদ্ধির কারণে জরায়ুর আবরণী নিষিক্ত ডিম্বকগুলোকে সাপোর্ট দেওয়ার জন্যে যথেষ্ট পুরু হয়ে ওঠেছে। একই সময়ে, আপনার ডিম্বাশয়ে তরলভর্তি থলিতে, যেগুলো ফলিকল (follicles) নামে পরিচিত, তাতে ডিম্বাণুগুলো পরিণত হয়ে উঠছিল। ডিম্বস্ফুটন বা ওভুলেশন যখন ডিম্বস্ফুটন (Ovulation) হয়, তখন ডিম্বাশয়…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৩

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৩

অভিনন্দন! এই সপ্তাহে আপনাকে officially গর্ভবতী বলা যায়। এ সময় বংশগতির অন্যতম নিয়ন্ত্রক উপাদান জীনগত গঠন (genetic makeup)  সম্পূর্ণ হয় এবং শিশুর লিঙ্গ নির্ধারিত হয়। গর্ভধারণ শুরুর তিন দিনের মধ্যে নিষিক্ত ডিম্বাণু খুব দ্রুত বিভাজিত হয়ে বহুকোষে পরিণত হয়। তা ফ্যালোপিয়ান নালি (Fallopian tube) দিয়ে জরায়ুতে  গিয়ে পৌঁছে এবং জরায়ুগাত্রে সংযুক্ত হয়। এ সময় ভ্রুণের পুষ্টি যোগানোর জন্য জরায়ুর অন্তরাচ্ছদক অঙ্গ গর্ভফুলের (placenta) গঠন শুরু হয়। এই সময়ে আপনার বাচ্চাটি আকার ছোট্ট একটা বলের সমান (Blastocyst)। এই ছোট্ট বল যাকে কেন্দ্র করে কোষ বিভাজন শুরু হয়েছে, তার চারপাশে এমনিয়োটিক ফ্লুইড…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৪

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৪

অভিনন্দন!! আপনি যদি জানতে পারেন যে আপনি গর্ভবতী তাহলে আপনি অনেকের চাইতে ভাগ্যবতী।কারণ অনেকেই মাত্র ৪ সপ্তাহে গর্ভধারণের সুসংবাদটি পান না। এ পর্যায়ে শিশুর অঙ্গ-সংস্থানের উন্নয়ন শুরু হয় যা অবশেষে মুখমন্ডল, ঘাড় ও গলা গঠন করে। হৃদপিন্ড এবং রক্তবাহী শিরা ও ধমনীর উন্নয়নও চলতে থাকে। ফুসফুস, পাকস্থলি ও যকৃতের ঊন্নয়ন শুরু হয়। এই সময় আপনার ভ্রুনের সাইজ একটি পপি বীচির সমান থাকে। এর দুটো স্তর থাকে যা থেকে তার সব অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বিকশিত হয়। আপনার শিশু এখন এক ইঞ্চির ১/২৫ ভাগ দৈর্ঘের। আপনি তার চোখ, কান, বা মুখ দেখতে পাবেন…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৫

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৫

এই সপ্তাহে আপনি গর্ভধারণের উপসর্গ গুলো সর্ম্পকে পরিচিত হতে শুরু করবেন। এই সপ্তাহে বাচ্চার হৃদপিন্ড, পাকস্থলি, লিঙ্গ ও কিডনির গঠন শুরূ হয়।  এই সময় ভ্রুন দ্রুত বাড়তে থাকে। ভ্রুন এর তিনটি স্তর থাকে – ectoderm যা থেকে বাচ্চার nervous system, চোখ, কান এবং অনেক connective tissue গঠিত হয়। mesoderm থেকে বাচ্চার হাড়, পেশী, হৃদপিণ্ড এবং circulatory system গঠিত হয়। endoderm থেকে বাচ্চার lungs, intestines এবং bladder গঠিত হয়। এ সপ্তাহের শুরুতে ভ্রুন ১.০৫ মিলিমিটার বা .০৫ ইঞ্চি লম্বা হয়। আপেল বীচির আকৃতির গর্ভস্থ শিশুটিকে এখন অনেকটা ব্যাঙ্গাচির মতো মনে হয়।…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৬

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৬

গর্ভধারণের এই সপ্তাহ খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারন এই সময়ে আপনার গর্ভের সন্তানের অনেক পরিবর্তন আসতে শুরু করে। এই সময়ে ultrasound এ বাচ্চার আকৃতি ধরা পরে। বাচ্চা এই সময়ে ৫-৬ মিলিমিটার লম্বা হয়ে থাকে। বাচ্চার নাক, মুখ, কান আস্তে আস্তে আকার নিতে শুরু করে। মাথার আকার অপেক্ষাকৃত বড় থাকে এবং তাতে কাল স্পট দেখা যায়, যেখানে বাচ্চার চোখ ও নাকের গঠন শুরু হয়। মাথার দুপাশে একটু চাপা থাকে যেখানে বাচ্চার কান আকার নিতে শুরু করে।  শরীরের দু পাশে কুঁড়ির মত দেখতে মাংসপিণ্ড দেখা যায়, যা আস্তে আস্তে হাত এবং পা এ পরিনত…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৭

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৭

লম্বায় আপনার গর্ভের সন্তান এখন প্রায় ১ সেন্টিমিটার। আপনার গর্ভের ভ্রুনটি আস্তে আস্তে ছোট্ট একজন মানুষে পরিনত হচ্ছে। এ সময়ে হাড়ের গঠন শুরু হয়। এ সপ্তাহে শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশ দ্রুত হতে থাকে। প্রতি মিনিটে প্রায় ১০০ নতুন কোষ এর সৃষ্টি হয়। বাচ্চার কিডনির গঠন শুর হয়েছে কিন্তু তা এখন কর্মক্ষম নয়। যৌনাঙ্গ ও আস্তে আস্তে বিকশিত হতে থাকে কিন্তু এখনই আলট্রাসাউন্ড এ তা ধরা পরবেনা। আপনার গর্ভস্থ শিশু এখনো ভ্রুণ অবস্থায় আছে। আকারে তা একটি কালজামের সমান। তবে এখন এর আকার আগের সপ্তাহের দ্বিগুণ। এর মাথার কাছে নতুন একটি স্ফীতি…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৮

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৮

আপনার শিশু এখন তার বিকাশের প্রায় ষষ্ঠ সপ্তাহে পৌঁছে গেছে । এই সপ্তাহটি হল বৃদ্ধির জন্য একটি বড় সময় । আপনার শিশুর নেত্রপল্লবের ভাঁজ ও কানের গঠন শুরু হয়ে গেছে। হাত এবং পায়ের ছোট্ট ছোট্ট আঙ্গুল যা এখন হাঁসের পায়ের মতো দেখতে, সেগুলির বিকাশ হচ্ছে এবং সে আপনার গর্ভে সাঁতারও কাটতে শুরু করেছে । এসময় শিশুর আকার একটি বরই এর সমান হয় (৩০ মি.মি. বা পুরো এক ইঞ্চি) এবং প্রতিদিন প্রায় এক মি.মি. হারে এর আকার বাড়ছে। এর মধ্যে পেছনের লেজের মত অংশটি প্রায় মিলিয়ে গেছে এবং তার মধ্যে মানুষের…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৯

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ৯

এই সপ্তাহ থেকে আপনার শরীরের ভ্রুনটি ধীরে ধীরে মানবশিশুর রুপ নিতে থাকে। ভ্রুন এর লেজটি এসময় মিলিয়ে যায়। এখন ফিটাসের আকার একটি জলপাইয়ের সমান এবং মাথা থেকে তলা পর্যন্ত এর দৈর্ঘ্য প্রায় ২২ মি.মি. এবং অজন প্রায় ২ গ্রাম। এসময় মুখমণ্ডল তৈরি হচ্ছে এবং খুব ছোট আকারে জিহ্বাটি আকৃতি লাভ করছে। কানগুলোর ভেতর এবং বাইরের আলাদা কাঠামো দেখা যাচ্ছে এবং অন্তঃকর্ণে যে বিশেষ তরল থাকে তা জমা হতে শুরু করেছে। এই বিশেষ তরলটিই শারীরিক ভারসাম্যের বোধ তৈরি করে। এরমধ্যে চোখগুলো কিছুটা বড় হয়েছে এবং নিজস্ব বর্ণ ধারণ করেছে, কিন্তু ওগুলো…

Read More

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ১০

সপ্তাহ অনুযায়ী গর্ভাবস্থা । সপ্তাহ – ১০

আপনি এ সপ্তাহে মোটামুটি আপনার প্রথম তিন মাসের (First Trimester) শেষভাগে চলে আসবেন। দশম সপ্তাহে এসে গর্ভের শিশুটি দ্বিগুণ আকার ধারণ করবে. এখন তার আকার হবে একটা খেজুরের সমান। এ সপ্তাহে শিশুর হাড় ও কোমলাস্থি ( Cartilage) গঠিত হতে শুরু করবে। আপনি হয়তো অনুভব করতে পারবেন না, কিন্তু ইতিমধ্যেই শিশুর লাথি দেয়া ও হাত-পা নাড়ানো শুরু হয়ে যাবে। এ সপ্তাহ নাগাদ শিশুটির গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলো গঠিত হয়ে পুরোদমে কাজ শুরু করে দেবে। এখন সে পরিপাক নালী দিয়ে খাবার ভেতরে নিতে পারবে, আবার মলত্যাগ করে বের করে দেয়ার জন্যও তার শরীর প্রস্তুত…

Read More