‘শাহি টুকরা’

উপকরনঃ মাঝারি সাইজের পাউরুটি -৮ টি স্লাইস

তরল দুধ – ২ কাপ

বাটার / তেল / ঘি – ২ থেকে ৩ টেবিল চামচ

চিনি- ১ কাপ থেকে দেড় কাপ (মিষ্টতার রুচি /স্বাদ অনুযায়ী)

 

প্রণালী প্রথম ধাপঃ পাউরুটির টুকরা প্রিপ্যারাশান- - পাউরুটির পাশের পোড়া ও মোটা অংশগুলো ছুরি দিয়ে পাতলা করে কেটে নিন। এক একটি পাউরুটিকে চার ভাগ (কিউব আকারে) করুন। পাউরুটি আপনার পছন্দ অনুযায়ীও (ত্রিভুজ ইত্যাদি) কাটতে পারেন। তবে, সাধারণ মাপের একটা পাউরুটি কে মাঝামাঝি দু-বার কেটে চারটে কিউব করে নিলে ডিশটি তৈরিতে এবং পরিবেশনে সুবিধা হয়।

 

- এবার একটি ফ্রাই-প্যানে এক টেবিল চামচ পরিমান তেল/ অথবা বাটার/ ঘি দিন। ঘি আর তেল এর সংমিশ্রণও করে দিতে পারেন। প্যানের চারপাশে তেল/ ঘি/বাটার ঘুরিয়ে চারপাশে সমানভাবে ছড়িয়ে দিন। এবার পাউরুটির টুকরোগুলো প্যান –এ পাশাপাশি বসিয়ে হালকা বাদামি করে ভাজতে থাকুন, ৫ মিনিটের মতো হালকা এবং মাঝারি আঁচে মিলিয়ে ভেজে তুলুন। পাউরুটির উলটো পিঠ ভাজার জন্য এক্সট্রা তেল ইত্যাদি দিতে হবে না, কিছুক্ষণ অল্প আঁচে রেখে দিলে টোস্ট হয়ে যাবে। সাধারণ মাপের ফ্রাই প্যানে এভাবে দুই বা তিন ব্যাচ করে ভাজতে হবে।

 

দ্বিতীয় ধাপঃ ঘন মিষ্টি দুধ তৈরি দুই কাপ তরল গরুর-দুধে ২ টেবিল চামচ গুঁড়ো দুধ এবং দুই টেবিল চামচ চিনি মিশিয়ে জ্বাল দিয়ে ঘন ক’রে এক কাপ পরিমান করুন, সাথে আধ চা চামচ ঘি অথবা বাটার মেশাতে পারেন। তরল দুধের সাথে দুধ পাউডার মেশালে এম্নি-ই ভালো গন্ধ হয়। আর আরো স্পেশাল করতে চাইলে ঘি /বাটার মেশানো যায়। (তরল দুধ না থাকলে শুধু গুঁড়ো দুধ দিয়েও বানিয়ে নিতে পারেন)

 

তৃতীয় ধাপঃ চিনির সিরা তৈরি এক কাপ চিনিতে দেড় কাপ মতো পানি ঢেলে কয়েক মিনিট ফুটিয়ে পাতলা সিরা তৈরি করুন। ফুটানোর সময় ২ টি এলাচ, ছোট্ট এক টুকরো দারচিনি ছেড়ে দিন।

 

শেষ ধাপ ও পরিবেশনঃ পাউরুটির ভাজা টুকরোগুলো একটি চ্যাপ্টা ট্রে – তে বিছিয়ে নিন। আমি কয়েকটি ভাতের প্লেট অথবা চ্যাপ্টা তলা-ওয়ালা বাটিতে পাশাপাশি একটি একটি বসিয়ে নেই। এক্ষেত্রে কয়েকটি প্লেট লাগতে পারে। এর পর প্লেট/ট্রে –তে চিনির সিরা ঢেলে দিন যাতে পাউরুটির টুকরোগুলো সিরা শুষে নিতে পারে। খেয়াল রাখবেন টুকরোগুলোর অর্ধেক বা তার একটু কম সিরায় ডুববে । পুরোপুরি ডুবিয়ে দেবেন না, কারণ তাতে পরিবেশনের সময় টুকরো গুলো ছিঁড়ে যাবে। নিচের সিরা ৫ থেকে ১০ মিনিটের মধ্যেই শোষিত (soaked) হয়ে সম্পূর্ণ টুকরোটি নরম আর মিষ্টি হয়ে যাবে। এবার একটি চামচ দিয়ে ঘন দুধ প্রতিটি টুকরোর ওপর সমান ভাবে দিয়ে দিন। এক এক টি টুকরোয় দুই চা চামচ এর মতো দুধ দিলে চলবে । যদি দুধে সর থাকে, সেগুলো টুকরোর উপর বসিয়ে দিন, খুবই লোভনীয় হবে। উপরে পেস্তা বাদাম কুচি ছড়িয়ে দিন। মোট কথা ভাজা পাউরুটির টুকরো গুলোর নিম্ন-ভাগে সিরা আর ওপর থেকে ঘন দুধ শুষে নেবে। -এই! এরপর পাতলা চামচ দিয়ে আস্তে আস্তে টুকরোগুলো তুলে পরিবেশন প্লেটে সবগুলো টুকরো সাজিয়ে নিন।

 

পুরো প্রণালী শেষ হবার ১০ থেকে ১৫ মিনিট পর এটা সবচে মজা লাগে, কারণ ওপর আর নিচ থেকে ভালো ভাবে দুধ আর সিরা শুষে নিয়ে নরম আর রসালো হয়।

 

এইভাবে সাধারণ পাউরুটি টুকরো হয়ে গেলো ‘শাহি টুকরা’। জিনিস টা যারা চেনে না, তারা খেয়ে বুঝতেই পারে না যে এটা পাউরুটি দিয়ে বানানো। বেশ মজার একটা ডেসার্ট হিসেবে বানাতে পারেন লাঞ্চ/ ডিনার এর দাওয়াতেও। এতো লম্বা চওড়া করে রেসিপি লিখলাম যাতে নতুন রাঁধুনি হ’লে হেল্প হয়। একই জিনিস আমি প্রায়ই চিনির সিরা না করে, শুধু ঘন মিষ্টি দুধ দিয়েও করি বাসার আটপৌরে নাস্তায়।

 

সবাইকে ধন্যবাদ। শুভকামনা।

Related posts

Leave a Comment