গর্ভাবস্থায় মায়ের স্তন থেকে তরল (দুধ) নিঃসরণ কেন হয়?

গর্ভাবস্থায় মায়ের স্তন থেকে তরল বা দুধ নিঃসরণ কেন হয়?

একজন গর্ভবতী মহিলার গর্ভকালীন সময়ে স্তন থেকে দুধ নিঃসৃত হতে পারে।  পুরু, চটচটে, হলদেটে কমলা রঙের যে তরল পদার্থ বেরিয়ে আসে তা আসলে দুধ নয়, সেটি প্রকৃতপক্ষে কোলোস্ট্রাম। কোলোস্ট্রাম শিশুর জন্য পুষ্টিগুণ সম্পন্ন একটি তরল।  শিশুটিকে সুস্থ রাখার জন্য এতে চর্বি কম থাকে এবং কার্বোহাইড্রেট, প্রোটিন, এবং অ্যান্টিবডিগুলি বেশী পরিমাণে থাকে।  এর পরিমান কম হয় কিন্তু নবজাতকের জন্য ঘন পুষ্টিগুণ সমৃদ্ধ হয়।

একজন স্ত্রী যখন গর্ভবতী হন, তখন তার শরীরে হরমনাল পরিবর্তন হতে থাকে। হরমোন পরিবর্তনের সাথে সাথে শারীরিক কিছু পরিবর্তনও আসে। মায়ের বুকের দুধ আসাও এমনই একটি পরিবর্তন। অনেকের দেখা যায় প্রসবের আগে দুধ চলে আসে, অনেকের প্রসবের সাথে সাথে আবার অনেকের আসে প্রসবের ২-৩ দিন পর। এটি কোন অসুবিধা নয়। স্বাভাবিক ব্যাপার।

মায়ের বুকের দুধ তৈরির হওয়ার তিনটি পর্যায় রয়েছে। প্রথম এবং দ্বিতীয় পর্যায় দুটি হরমোনের নিয়ন্ত্রণাধীন। প্রজেস্টেরন ও ইস্ট্রজেন নামক হরমোন দুটি গর্ভাবস্থার প্রধান হরমোন। শিশুর সম্ভাব্য জন্মের ১২ সপ্তাহ আগেই দুধ তৈরির প্রথম পর্যায় সম্পূর্ণ হয়। যদিও শুরু হয় গর্ভাবস্থার চার পাঁচ মাস থেকে। এই সময় শুধু “কোলোস্ট্রাম” নামক প্রাথমিক দুধ তৈরি শুরু হয়। দুধ তৈরির জন্য প্রয়োজনীয় পদার্থ স্তনে এসে জমা হতে থাকে। এই কারণেই মায়দের গর্ভাবস্থায় স্তন থেকে দুধ নিঃসরণ হয়ে থাকে।

মায়ের বুকের দুধ কিভাবে তৈরি হয় সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পড়ুনঃ মায়ের বুকের দুধ কিভাবে তৈরি হয় এবং কিভাবে তা সচল রাখবেন।

গর্ভাবস্থায় দুধ আসা নিয়ে কি  বিচলিত হওয়া উচিত?

না, গর্ভবতী অবস্থায় কোলোস্ট্রাম চুঁইয়ে বেরিয়ে আসার ব্যাপারে আপনার বিন্দুমাত্র উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত নয়। এটি গর্ভাবস্থার অতি সাধারণ একটি উপসর্গ। কিছু মহিলার গর্ভধারণের ১৪ সপ্তাহের মধ্যে এমন হতে পারে, অন্যরা অনেক পরে এটি অনুভব করতে পারে বা আদৌ নাও করতে পারে।  কখনও কখনও আপনার একটি স্তন থেকে নিঃসরণ হতে পারে আবার কখনও উভয় স্তন থেকে।  একই সময়ে কিছু নারীর বেশী পরিমাণে নিঃসরণ হতে পারে এবং কারো খুব কম হতে পারে।  যাই হোক না কেন, এটি নবজাতককে মাতৃদুগ্ধ যোগাবার জন্য শুধু মাত্র একটি দৈহিক প্রস্তুতি।

উপরন্তু, যদি পুরো গর্ভাবস্থায় আপনার একবারও স্তন থেকে নিঃসরণ না হয়, তবুও চিন্তার কিছু নেই কারণ সেটিও সম্পূর্ণ স্বাভাবিক এবং কোনোভাবেই শিশুর জন্মের পর বুকে দুধ আসা, না আসা কে প্রভাবিত করে না। তবে, যদি তরলগুলো আপনার কাছে পুঁজের মতন মনে হয় অথবা ব্যাথা অনুভব হয়, নিজের কাছে অস্বাভাবিক মনে হয় তবে দ্রুত আপনার চিকিৎসকের সাথে সাক্ষাত করবেন।

স্তন থেকে দুধ নিঃসরণ এর ব্যাপারে আমি কি করতে পারি?

যদি আপনার স্তন থেকে খুব বেশি দুধ নিঃসরণ হয় তবে ফেলে দেওয়ার মত অথবা ধুয়ে ফেলা যায় এমন স্তনপটি (ব্রেস্ট প্যাড) হল ভালো বিকল্প, যা কোলোস্ট্রামের অবাঞ্ছিত নিঃসরণ শোষণ করে অস্বস্তিকর পরিস্থিতি থেকে বাঁচার মতো করে বিশেষভাবে ডিজাইন করা হয়। আরও ভালো ফলের জন্য, গোসলের আগে এবং পরে প্রতিদিন কিছু সময়ের জন্য আপনার স্তন বাতাসে শুকিয়ে নিন।

সবার জন্য শুভকামনা।

Related posts

Leave a Comment