নবজাতকের নখ কাটা ও নখের যত্ন

নবজাতকের নখ কি কাটা উচিৎ?

নবজাতকের নখ বড়দের তুলনায় পাতলা এবং নরম হতে পারে। কিন্তু সেগুলো ধারালো হয়। আর নবজাতকের যেহেতু নিজের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের উপর নিয়ন্ত্রণ তেমন একটা থাকেনা তাই বাবু সহজেই নিজেকে নিজেই এমনকি আপনাকেও খামচি দিয়ে ক্ষত তৈরি করে ফেলতে পারে। তাই কিছুদিন পর পর নখগুলো কেটে দিন, যাতে এগুলো ধারালো না হতে পারে।

শিশুদের হাতের নখ খুব তাড়াতাড়ি বড় হয়। এমনকি সপ্তাহে কয়েকবার তার নখ কাটার প্রয়োজন পড়তে পারে। পায়ের নখ খুব একটা দ্রুত বড় হয়না।

কিভাবে সাবধানে বাচ্চার নখ কাটা যাবে?

শিশু যখন ঘুমিয়ে থাকে অথবা তার খাবার খাওয়ানোর সময় নখ কাটা অনেক সহজ। কারণ এ সময় তারা খুব নড়াচড়া করেনা। এছাড়াও গোসলের পর নখগুলো অনেক নরম থাকে তাই কাটতে সুবিধা হয়।

বাচ্চার নখ কাটার সময় যাতে পর্যাপ্ত আলো থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। নবজাতকের নখ কাটার জন্য উপযোগী কাঁচি বা নেইল কাটার ব্যাবহার করবেন। বড়দের নেইল কাটারগুলো বাচ্চার ছোট হাতের নখ কাটার জন্য উপযোগী নয়। নখ কাটার সময় নখের নীচের অংশ নখ থেকে দুরে সরিয়ে দিন যাতে তা কেটে না যায় এবং বাচ্চার হাত শক্ত করে ধরে রাখুন।

সাধারণ বেবি নেইলকাটার বা কাঁচির মত বেবি নেইলকাটার যেটাই ব্যবহার করুন না কেন ব্যবহারের আগে তা জীবাণুনাশক মেশানো পানিতে একবার ধুয়ে নিন ৷  বাচ্চাদের নখ সাধারণত নরমই থাকে তবে শক্ত মনে হলে গোসলের পর নখ কাটুন৷

বাবুর হাতের নখ সুন্দর করে গোল করে কেটে দিলেও পায়ের নখ কাটার সময় সোজা কাটবেন। পায়ের নখের দুইপাশে বেশী করে কাটতে গেলে ইনগ্রোন নেইল বা নখ বেড়ে যেতে পারে ত্বকের ভেতরের দিকেও। নখ কাটার পড় এমেরি বোর্ড বা নেইল ফাইল দিয়ে নখের ধারালো অংশগুলো মসৃণ করে দিন।

অনেক ডাক্তার জন্মের প্রথম কয়েক সপ্তাহ বাচ্চার নখ ছোট করার জন্য এমেরি বোর্ড বা নেইল ফাইল ব্যাবহার করার পরামর্শ দেন। কারণ এসময় বাচ্চার নখ অনেক নরম থাকে এবং নতুন বাবা মা নখ কাটতে গিয়ে বাচ্চার হাত কেটে ফেলতে পারেন। তাই নখ কাটতে না পারলেও, নেইল ফাইল দিয়ে নখ ঘষে ধারালো ভাবটা কমিয়ে দিতে পারেন।

যদি বাচ্চা জেগে থাকা অবস্থায় তার নখ কাটতে চান তবে সবচাইতে ভালো হয় যাতে সাথে কেউ থাকে যে বাচ্চার হাত ধরে থাকবে এবং বেশী নড়াচড়া করতে দেবেনা এবং তার মনোযোগ অন্যদিকে ফিরিয়ে রাখতে সাহায্যও করবে।

অনেক বাবা মা নিজের দাঁত দিয়ে বাচ্চা নখ ছোট করেন। এটা কখনোই করা উচিৎ না, কারণ এর ফলে আপনার মুখ থেকে জীবাণু বাচ্চার হাতে যেতে পারে। এছাড়াও এভাবে নখ কাটার সময় যেহেতু আপনি বাচ্চার হাত ঠিকভাবে দেখতে পারেন না তাই হাত কেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

একেবারে শুরুতে বাবুর নখ থাকে একদম পাতলা, চামড়ার মতো। অনেক সে সময় আঙ্গুল দিয়েও সেই পাতলা নখের বাড়তি অংশটা ছিড়ে ফেলেন । তবে এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে যেন বেশি ছিড়ে না যায়।

নখ কাটার সময় বাচ্চার হাত যদি অসাবধানতা বশত কেটে যায় তাহলে কি করতে হবে?

বাচ্চার নখ কাটার সময় অসাবধানতা বশত আঙ্গুল কেটে যেতে পারে। এতে খুব বেশী অপরাধ বোধে ভোগার বা আতঙ্কিত হওয়ার কারণ নেই। অনেক বাবা মায়ের ক্ষেত্রেই এমন হতে পারে। আঙ্গুল কেটে গেলে কাটা অংশ ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন এবং টিস্যু বা একটি কাপড় দিয়ে সেখানটা কয়েক মিনিটের জন্য হালকা চাপ দিয়ে ধরে রাখুন। সাধারণত কয়েক মিনিটের মধ্যে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যায়।

বাচ্চার হাতে ব্যান্ডেজ বাধার প্রয়োজন নেই। বাচ্চা যেহেতু মুখে হাত দেবে, সে সময় ব্যান্ডেজ খুলে যেতে পারে এবং বাচ্চার গলায় আটকে যেতে পারে। যদি রক্ত পরা বন্ধ না হয় তবে ডাক্তারকে জানাতে হবে।

বাচ্চার নখ কিভাবে কাটবেন তা নীচের ভিডিওতে দেখুন-

সবার জন্য শুভকামনা।

Related posts

Leave a Comment

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.